এবার রকেট ইঞ্জিন পরীক্ষা চালালো উত্তর কোরিয়া

টাইগার নিউজ

image-24774উত্তর কোরিয়া তীব্র গতিসম্পন্ন রকেট ইঞ্জিন পরীক্ষা চালিয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির এক গণমাধ্যম। সফলভাবে এ পরীক্ষা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন।

রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম কেসিএনএ জানায়, তীব্র গতিসম্পন্ন নতুন এ রকেট ইঞ্জিনের পরীক্ষাকে উত্তর কোরিয়ার রকেট ইন্ডাস্ট্রির ‘নতুন জন্ম’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন দেশটির নেতা কিম জং আন। এই ইঞ্জিনটি বিশ্বমানের স্যাটেলাইট উৎক্ষেপনের সক্ষমতা অর্জনে সহায়তা করবে।

কেসিএনএ-র প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, এটি উৎক্ষেপনের সময় ব্যক্তিগতভাবে উপস্থিত ছিলেন কিম জয় উন। তিনি বলেন, খুব শিগগির সারা বিশ্বই এই গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কারের বিষয়টি জানতে পারবে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী রেক্স টিলারসনের চীন সফরের মধ্যেই এমন ঘোষণা দিল উত্তর কোরিয়া। যদিও এই বিবৃতির বিষয়ে আর কোন মাধ্যম থেকে নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি।

টিলারসনের পূর্ব এশিয়া সফরে উত্তর কোরিয়ার ক্রমবর্ধমান পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির বিষয় প্রাধান্য পেয়েছে।

শুক্রবার টিলারসন পিয়ংইয়ংকে সতর্ক করে বলেন, উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে দক্ষিণ কোরিয়া বা মার্কিন বাহিনীর প্রতি যদি কোন ধরনের হুমকি আসে তবে সামরিকভাবে এর জবাব দেয়া হবে।

কয়েকদিন আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে বলেন, “উত্তর কোরিয়া ‘খুব খারাপ আচরণ করছে।’

পিয়ংইয়ং গত বছরগুলোতে বেশ কয়েকটি পরমাণু পরীক্ষা চালিয়েছে। গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র সফররত জাপানি প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে বৈঠক চলাকালীন ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিল উত্তর কোরিয়া।

২০১৬ সালে উত্তর কোরিয়া বেশ কয়েকটি ব‌্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। পূর্ববর্তী বছরগুলোর তুলনায় গত বছর ব‌্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে দেশটির তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মত।গত বছর দুইটি পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপন চালায় দেশটি।

এদিকে জাতিসংঘ বার বার উত্তর কোরিয়াকে এসব পারমাণবিক অস্ত্রের উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দিয়ে আসছে। পারমাণবিক ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার জেরে ২০০৬ সাল থেকে উত্তর কোরিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখেছে জাতিসংঘ।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে মহাশূন্যে পাঠানোর উদ্দেশ্যে একটি কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করেছিল উত্তর কোরিয়া। ওই উৎক্ষেপণকে দীর্ঘপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা বলে মনে করেন পর্যবেক্ষকরা।

২০১১ সালে কিমের বাবার মৃত্যুর পর রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসেন তিনি। সদ্য বিদায়ী ২০১৬ সালের শুরুতেও হাইড্রোজেন বোমার ঘোষণা দেয় দেশটি। শেষ প্রান্তে এসে পঞ্চমবারের মতো পারমাণবিক বোমার সফল পরীক্ষা চালানোর কথা জানায় উত্তর কোরিয়া। এর বাইরেও বেশ কয়েকবার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছাড়ে তারা।

সূত্র : ঢাকাটাইমস

আপনার মতামত



close