জাফরুল্লাহ চান, তারা চান না

টাইগার নিউজ

bnp_habib_125086ইদানীং বিএনপির পরামর্শক হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী। সবশেষ পরামর্শে তিনি দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বিভিন্ন পেশায় প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিদের বিএনপিতে সংশ্লিষ্ট করতে বলেছেন। এই পরামর্শ খালেদা জিয়া গ্রহণ করবেন কি না, সে প্রশ্নের উত্তর হয়তো এখনই জানা যাবে না। তবে জাফরুল্লাহ যাদেরকে বিএনপিতে নিতে বলেছেন তাদের প্রায় সবাই জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তাদের কোনো আগ্রহ নেই।

‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে, খোলা চিঠি-২’-এ জাফরুল্লাহ যাদের বিএনপিতে ‘কো-অপ্ট’ করতে বলেছেন তাদের মধ্যে আছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক তোফায়েল আহমদ, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী দিলারা চৌধুরী, অধ্যাপক আহমেদ কামাল, বামপন্থি শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, অধ্যাপক ফেরদৌস আজিম, পারভীন হাসান, নারীপক্ষের শিরীন হক, সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের বদিউল আলম মজুমদার, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা হাফিজ উদ্দিন আহমদ, পানি ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ এস এ খান ও আইনুন নিশাত, চিকিৎসক অধ্যাপক এম আর খান ও এ কে আজাদ খান, অর্থনীতিবিদ বিনায়ক সেন ও দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, আইন বিশেষজ্ঞ শাহদীন মালিক, সাবেক তিন মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার, সা’দত হুসাইন, আকবর আলি খান, শওকত আলী প্রমুখ।

জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এই প্রস্তাবের বিষয়ে এখনো প্রতিক্রিয়া জানাননি খালেদা জিয়া। তবে তিনি যে সিদ্ধান্ত দেবেন তা বিনা প্রশ্নে মেনে নেয়ার কথা জানিয়েছেন বিএনপির একাধিক নেতা।

দলটির স্থায়ী কমিটির সদস‌্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমাদের গঠনতন্ত্র সংশোধন করে কমিটির বিষয়ে যেকোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার একক ক্ষমতা চেয়ারপারসনকে দেয়া হয়েছে। তাই এসব বিষয়ে তিনি যা করবেন, আমরা তা-ই মেনে নেব। তিনি চাইলে যে কাউকে দলে নিতে পারেন। আবার যে কেউ দলে আসারও আবেদন করতে পারেন। এসব বিষয় একমাত্র ম্যাডামই (খালেদা জিয়া) ভেবে দেখতে পারেন। আর কমিটিতে নতুন কোনো বিষয়, পদ-পদবি আনতে হলে গঠনতন্ত্র সংশোধন করারও দরকার হতে পারে।’

সূত্র ঃ ঢাকা টাইমস

আপনার মতামত



close