পছন্দের খাবার মানেই ‘পেয়ালা ক্যাফে’

টাইগার নিউজ

peyala_cafa2_124668_0বিশ্বমানের সুস্বাদু খাবার, র‌্যাপ ও তাজা সালাদ বোল নিয়ে এসেছে কাস্টমারদের জন্য ‘পেয়ালা ক্যাফে’। বিভিন্ন দেশি-বিদেশি মানের খাবারে আনা হয়েছে মনের মতো সব ফ্লেভার। নতুনত্ব নিয়ে আরো কিছু ফুড আইটেম আসছে কাস্টমারদের জন্য। ভ্রমণ, অবসর কিংবা পারিবারিক অয়োজনে পাওয়া যাবে পেয়ালা ক্যাফের স্বাস্থ্যসম্মত ফুড আইটেম। পেয়ালা ক্যাফের সার্বিক বিষয় নিয়ে কথা হয় এর ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি, ডিপার্টমেন্ট ব্রাঞ্চের সায়মা ফারহানার সঙ্গে। তার কাছেই জানা যায় পেয়ালা ক্যাফের অন্দরমহলের কথা। পেয়ালা ক্যাফের ফুড আইটেম নিয়ে এবারের আয়োজন লিখেছেন শেখ সাইফ।
স্বনামধন্য কোম্পানি এমজিএইচ গ্রুপের সাউথ আফ্রিকান চেইন ব্র্যান্ডিং রেস্টুরেন্ট ‘নানদোজ’ বহুল পরিচিত নাম। নানদোজের খাবারের কলেবর বৃদ্ধিতে ঢাকার অভিজাত এলাকায় চারটি শাখা সুনামের সঙ্গে কাস্টমারদের খাবার পরিবেশন করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় এমজিএইচ গ্রুপ সম্পূর্ণ নিজেদের চিন্তাচেতনায় বহুমাত্রিক মনমাতানো ফ্লেভারে র‌্যাপ ফুড ও সালাদ বোল নিয়ে ২০১৬ সালের ১ জুন কাস্টমারদের কাছে এসেছে ‘পেয়ালা ক্যাফে’।
পেয়ালা ক্যাফে যে সব ফুড আইটেম পাওয়া যাবে-
ফুড আইটেম : র‌্যাপ ফুড ও সালাদ বোল মূলত প্রধান ফুড আইটেম। এসব ফুড আইটেমের ভেতর রয়েছে গুলাব জামুন চিজ কেক, জাপানি চিকেন টারিয়াকি, চিটাগাংনিয়ান বিফ ভুনা, ইন্ডিয়ান বাটার চিকেন, থাই গ্রিন চিকেন, চিকেন টেরিয়াকি, চিকেন ম্যাক্সিকানা, পনির, পালাক পনির, তান্দুরি, টিকাসহ আরো দেশি-বিদেশি ফ্লেভারের আইটেম। রয়েছে ফাহিতা, গার্লিক, মাশরুম, কর্ণ শালসা, সাওয়ার ক্রিম, বেলসামিক স্যালাদ। রয়েছে বিভিন্ন আইটেমের চা, কফি, ড্রিংকস ইত্যাদি। বড়-মেজো পেয়ালা, গরম পেয়ালা, ঠা-া পেয়ালা নামানুসারে সাজানো হয়েছে ফুড আইটেমগুলো।
পেয়ালা ক্যাফে আপনার চায়ের আমন্ত্রণ : বর্তমানে মাসালা চা একটি জনপ্রিয় নাম। বিশেষ করে ভারতে অধিক জনপ্রিয় মাসালা চা। জনপ্রিয় সেই মাসালা চা যখন আপনার হাতের নাগালে তখন ইচ্ছে হলেই খেতে পারেন। হ্যাঁ, এখন পেয়ালা ক্যাফে মাসালা টি পাওয়া যাবে। মনোহারণীয় অ্যারোমেটিক ফ্লেভার ও ডিফারেন্ট টেস্ট নিয়ে এসেছে মাসালা চা। এছাড়া অফিসের কাজের ফাঁকে এক কাপ চা পানের জন্য আছে রাস্তার চাসহ নানা প্রকারের স্বাদ ও ফ্লেভারের চা। সুতরাং কাজের ফাঁকে কিংবা অবসরে চলে আসুন ক্লান্তি দূর করতে পেয়ালা ক্যাফে।
তৃপ্তির চুমুকে পেয়ালা ক্যাফে : ঠাণ্ডা পেয়ালা ও গরম পেয়ালা নামে রয়েছে অনেকা ড্রিংকস। ঠাণ্ডার ভেতর রয়েছে কফি, ফ্র্যা পেয়ালা। আমেরিকানো, মকা, ক্যাপুচিনো, ভোজ ফ্র্যা পেয়ালা, ল্যামন আইচ টি, ল্যামন স্পার্লিংসহ অনেক ফ্লেভার পাবেন। এগুলো আবার বড় এবং মেজো নামে নামকরণ করা হয়েছে। বড় র‌্যাপগুলো ২৫০ টাকা ও মেজো র‌্যাপগুলো ১৮০ টাকা।

পেয়ালা ক্যাফে খাবার দাম : র‌্যাপ এবং বোলের সাইজ অনুযায়ী দাম রাখা হয়েছে। প্রতি ফুড আইটেমের দামের সঙ্গে অবশ্য ভ্যাট প্রযোজ্য। চিকেন তান্দুরি বড় র‌্যাপ ২৫০, মেজো র‌্যাপ ১৮০ টাকা। চিকেন ম্যাক্সিকানা মেজো র‌্যাপ ১৮০, বড় র‌্যাপ ২৫০ টাকা। মাসালা টি ছোট ৫০, বড় ৮০ টাকা। গুলাব জামুন চিজ কেক ২৫০ টাকা। চিকেন টারিয়াকি বড় র‌্যাপ ২৫০, ছোট র‌্যাপ ১৮০ টাকা। ইন্ডিয়ান বাটার চিকেন মেজো র‌্যাপ ১৮০, বড় র‌্যাপ ২৫০ টাকা। চিটাগাংনিয়ান কালাভুনা মেজো ১৮০, বড় ২৫০ টাকা।
আসছে কিছু নতুন খাবার : পেয়ালা ক্যাফে কাস্টমারদের চাহিদা মাথায় রেখে নিয়ে আসছে আরও কিছু নতুন আইটেম। এর মধ্যে রয়েছে ক্যাডেট কেক, ব্রাউনি চকলেট, বাটার চিকেন প্রভৃতি।

ভ্রমণ পথে পেয়ালা : ভ্রমণ পথে যে খাবার খেতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন তা পাওয়া যাবে পেয়ালা ক্যাফে। আপনি লং ড্রাইভে বের হয়েছেন, সঙ্গে খাবার নিতে হবে। চোখ বুজে চলে আসুন পেয়ালা ক্যাফে অথবা অর্ডার করুন আর বেছে নিন আপনার পছন্দের মেন্যু। এছাড়া আপনি পারিবারিক অর্ডার করতে পারেন। এক্ষেত্রে কোনো প্রকার সার্ভিস চার্জ নেওয়া হবে না। গুলশান, বনানী ও বারিধারাতে হোম ডেলিভারি দেওয়া হয়। সুতরাং আপনি কষ্ট করে পেয়ালা ক্যাফে না গিয়েও অনায়াসে পেয়ে যাবেন স্বাদের খাবার আইটেম।
পেয়ালা ক্যাফের বড় বিশেষত্ব হলো কাস্টমার চয়েজ। আপনি যে যে আইটেম দিয়ে খাবার খেতে ইচ্ছুক সেগুলোই আপনাকে পরিবেশন করা হবে। পেয়ালা ক্যাফের বেশিরভাগ কাস্টমার স্টুডেন্ট এবং কর্পোরেট। বিশেষ কাপল জুটিও আসেন এখানে প্রিয়জনের সঙ্গে একান্তে রসনাবিলাস উপভোগ করতে। রুচিশীল ও পছন্দসই প্লেসে খেতে কার না ভালো লাগে! পেয়ালা ক্যাফে ঠিক সেই রকম মনোমুগ্ধকর পরিবেশে আপনাকে জানাচ্ছে স্বাগতম।

কেমন পরিবেশ পাবেন পেয়ালা ক্যাফে : এক কথায় নীট অ্যান্ড ক্লীন পরিবেশ। সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যকর পরিবেশে আধুনিক রুচিসম্মত খাবার টেবিল-চেয়ারে বসে খাবেন। একসঙ্গে ২০-২৫ জন মিলে খেতে আসতে পারেন এখানে। নিরাপদ এবং নিরিবিলি পরিবেশে আপনার বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়স্বজন বা মনের মানুষের সঙ্গে কাটিয়ে দিতে পারেন সুন্দর একটি মুহূর্ত।
প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত খোলা পাবেন পেয়ালা ক্যাফে। যারা আপনাকে খাবার সার্ভ করবেন তাদের আচরণে আপনি মুগ্ধ হবেন। কারণ তারা সবাই ওয়েল ট্রেইন্ড অ্যাডুকেটেড। যারা সার্ভ করছেন তাদের অনেকেই ব্র্যাক অথবা নর্থ সাউথের মতো ইউনিভার্সিটির স্মার্ট, কোয়ালিটিফুল এবং কর্মঠ স্টুডেন্ট। এছাড়া পেয়ালা ক্যাফে নিজেদের ট্রেইন্ড করা সার্ভারার তো রয়েছেই।পেয়ালা ক্যাফে সপ্তাহে ৩ দিন তাদের কাজের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য রেগুলার ট্রেইন্ড করানো হয়। গ্রুমিংয়ের ওপর ট্রেনিং করানো হয় যাতে কাস্টমারদের কোনো কিছু পেতে অসুবিধা বা ওয়েট করতে না হয়। এখানে স্মার্ট ছেলেমেয়েরা সার্বক্ষণিক সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

পেয়ালা ক্যাফে রয়েছে কাজের সুযোগ : আমাদের দেশের ছেলেমেয়েরা বিদেশে পড়ালেখা করতে যায়। সেখানে লেখাপড়ার পাশাপাশি হোটেল-রেস্টুরেন্টসহ বিভিন্ন কাজে নিযুক্ত হন। ঠিক সেভাবেই পেয়ালা ক্যাফে আমাদের দেশের স্টুডেন্টদের জন্য সে সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। এখানে সম্মানজনক বেতনে পার্টটাইম ও ফুলটাইম কাজের সুযোগ রয়েছে। তবে যারা হোটেল ও ম্যানেজমেন্টে পড়াশোনা করেন তার জন্য সুযোগটা অনেক বেশি। এছাড়া যারা রান্না বিষয়ে আগ্রহী তারা এখানে এলে ট্রেইন্ড করে কাজের সুযোগ করে দেওয়া হয়।
মনমাতানো মৃদু মিউজিকের সুরে আপনি মূর্ছনায় যাবেন পেয়ালা ক্যাফে। অত্যন্ত স্বাস্থ্যকর পরিবেশে সুস্বাদু সব খাবার পেতে তাই আজই চলে আসুন গুলশান ২, ডিসিসি মার্কেট, ঢাকার পেয়ালা ক্যাফেতে। আর নিত্যনতুন সব পেয়ালা ক্যাফের খাবার মেন্যু ও তথ্য খুঁজে পেতে ফেসবুক লগইন করে এখনই লাইক দেন।
কিভাবে খুঁজে পাবেন : প্রথমে আপনার ফেসবুকে গিয়ে ইংরেজিতে পেয়ালা লিখে সার্চ দিলেই পেয়ে যাবেন পেয়ালার ফেসবুক পেজ। ইংরেজিতে চঊণঅখঅ লিখে সার্চ দিন এবং পেয়ালার সঙ্গে থাকুন আর উপভোগ করুন রসনাবিলাস।

সূত্র : ঢাকাটাইমস

আপনার মতামত



close