আমার বউদি যভোবে আনমরেটি নায়কিা!

টাইগার নিউজ

Dr.-Sarder-Anisড. সরদার এম. আনছিুর রহমান
শরিোনাম পড়ে পাঠকদরে মনে প্রশ্ন জাগতে পারে এ কমেন ঘটনা! বউদি আবার আনমরেটি নায়কিা হন কী কর।েএটা কি বাস্তব, না কোনো সনিমো-নাটকরে রূপকথা। পাঠকদরে বভ্রিান্ত না হতে প্রথমইে বলে রাখা ভাল য-ে কােনাে রূপকথা নয়িে লখোলখেরি অভ্যাস আমার নইে।সমাজরে চলমান ঘটনাপ্রবাহই সাধারণত আমার লখোলখেরি বষিয়বস্তু। ফলে এ কোনো সনিমো-নাটকরে রূপকথা কংিবা কৌতুক নয়, একবোরইে বাস্তব একটি ঘটনা পাঠকদরে সামনে হাজরি করছ।ি অবশ্বিাস্য মনে হলওে ‘কলরি কাল’ বলে একটি কথা আছ।ে তাই মূল বষিয়ে যাওয়ার আগে এর প্রক্ষোপট এবং নজিরে কছিু কথা দয়িে শুরু কর।ি তাহলে বষিয়টি বুঝতে পাঠকদরে জন্য সহজ হবে কমেন!

ময়মসংিহ ত্রশিালরে একই গ্রামে (বীররামপুর)ে আমাদরে বাড়ি আর মামার বাড়।ি মামার বাড়তিইে কটেছেে আমার শশৈব-কশৈোর। মামা মাদ্রাসায় মাস্টারী করনে, আর মামানি (আন্ট)ি পরবিার পরকিল্পনা বভিাগে চাকুরি করনে। তারাই আমার জীবনে তাদরে অনুপ্ররেণা ও অবদান খুবই গুরুত্বর্পূণ।

ফলে তাদরে সাথে যাদরে ভাল সর্ম্পক ছলি, তাদরে সাথে আমারও সুসর্ম্পক।এমনভিাবে শ্যাফালী নামে আন্টরি এক হন্দিু র্ধমাবলম্বী সহর্কমী বান্ধবী ছলি। তাকে হন্দিুরীততিে মাসি (আন্ট)ি বলইে ডাকতাম। তাঁর দুই ছলেমেয়েরে সাথওে আমার সুসর্ম্পক। ঈদ-পূজায় দুই পরবিাররে মধ্যে আসা-যাওয়া ছলি। দররিামপুরে বাসায় বড়োতে গলেে মাসি ও আংকলে আমাকে কী যে স্নহে করতনে!

সম্ভবত, ১৯৯৭ সাল, কলজে জীবন শষে করে সবমোত্র রাজশাহী ইউনভর্িাসটিতিে র্ভতি হয়ছে।ি প্রথম কংিবা দ্বতিীয় র্বষে পড়।ি মাসরি একমাত্র ছলেে শ্যামল দাদাও ময়মনসংিহরে আনন্দমোহন কলজেে বএিসসি অর্নাসে র্ভতি হয়ছেনে, সবার চোখমেুখে অনকে রঙনি স্বপ্ন, ছলেে লখোপড়া করে বড় চাকুরি নবি,ে এরপর অনকে ঘটা করে বয়িে দবিনে।

কন্তিু সইে রঙনি স্বপ্নে ব্যত্যয় ঘটলো, এরই মাঝে শ্যামল দ্যা অর্নাসে পড়ুয়া গৌরীপুররে এক ময়েরে প্রমেে পড়নে। গোপনইে চলছলি তাদরে ভালবাসা।

সইে সময়ে সাধারণত র্ভাসটিরি লম্বা ছুটতিে বাড়ি যতোম।সম্ভবত ১৯৯৮ সালরে শষেরে দকিরে ঘটনা, ঈদরে ছুটতিে গয়িে জানলাম, শ্যামল দা কাউকে না জানয়িইে ওই ময়েকেে ময়মনসংিহরে বড় কালমিন্দরিে নয়িে বয়িে করে ফলেছেনে। এতে আংকলে-মাসরি একটু মন খারাপ হলওে পুত্রবধূ খুব সুন্দরী বলে সবাই তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ, আমরাও খুশ।িছলেটেওি যমেন ট্যালন্টে তমেনি দখেতে রাজপুত্র।

তবে ময়েরে বাবা-মা কোনো মতইে রাজি নন। কন্তিু ময়ে,ে ছলেরে জন্য পাগল, তাই তারা ময়েকেে ভারতে পাঠানাের পরকিল্পনা নয়িওে সফল হনন।িঅবশষেে মাসরি অনুরোধে মামা আনুষ্ঠানকি প্রস্তাব নয়িে গৌরীপুর গলেনে, অনকে বুঝানোর পর বয়িতেে রাজওি হলনে তারা। ক’দনি পর পুনরায় বয়িে হলো। বউদকিে তুলে আনা হলো। কয়কেটি ঈদে আমাদরে এখানে বউদি বড়োতে আসলনে। আমরা আড্ডা দয়িছেি এর কোনো ইয়ত্তা নইে। আমার মামার ময়েে সন্তান নইে বলে তাকে একটু বশেীই স্নহে করতনে, তা দখেে আমাদরে র্ঈষাও হত। মামা-মামানি নজি হাতে খাবার তুলে খাওয়াতনে, গফিট দতিনে আরও কত কছিু!

যা বলছলিাম, দুজনে শক্ষর্িাথী বলে আমার মাসকিইে দু’জনার যাবতীয় খরচ চালাতে হতো। ওই সংসারে মাসরি চাকুরটিাই একমাত্র অবলম্বন। শ্যামল দা-বউদি দু’জনে মলিে ময়মনসংিহে ভাড়া বাসায় থাকতনে, এভাবইে তাদরে দাম্পত্যজীবন ভালোই চলছলি। তাদরে মধুর সর্ম্পক, এক র্পযায়ে দুজনরে খরচ চালাতে কষ্ট হওয়ায় শ্যামল দা নজিইে লখোপড়া ছড়েে বউদরি খরচ জুগাতে কোম্পানতিে চাকুরি নলিনে। এভাবে বছর খানকে পার হতে না হতইে বউদি লাক্স-আনন্দধারা ফটোজনেকি এ অংশ ননে, সুন্দরী নর্বিাচতিও হন। সবাই খুশীতে গদগদ। এবার বউদি বললনে, ঢাকায় যতেে হব।ে একাই ঢাকায় গয়িে টভিি নাট্যাভনিয় জগতে পর্দাপণ করলনে।এতওে সবাই খুশ,ি বউদি নাটকে অভনিয় করবনে, আর আমরা সবাই ঘরে বসে তা দখেবো, এরচয়েে আর আনন্দরে কী হতে পার!ে

বছরখানকে পর শ্যামল দা ময়মনসংিহরে চাকুরি ছড়েে বাবা-মাকে ফলেে রখেইে বউদরি র্মজতিে তার হাত ধরে ঢাকায় চলে আসলনে। ঢাকা উত্তরার ভাড়া বাসায় উঠনে। বউদি চুটয়িে নাটকে অভনিয় করছনে আর স্বামী শ্যামল দ্যা খরচ জুগাতে সম্ভবত: তখন একটা চাইনজি রস্টেুরন্টেে চাকুরি নলিনে। এরপরও ১৫ হাজার টাকার বাসা ভাড়া ও আনুষঙ্গকি খরচ তা দয়িে চলে না। বাধ্য হয়ইে বাসা থকেে টাকা আনতে হয। মাসি একমাত্র ছলেে এবং ছলেরে বউয়রে প্রতি অকৃত্রমি ভালবাসায় নজিে কষ্ট করওে তাদরে খরচ জোগান দতিে থাকনে। এভাবে বছর খানকে যতেে না যতেইে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দ্বন্দ্ব, বউদরি আচার আচরণে অনকে পরর্বিতন।তাদরে মধ্যে ঝগড়াঝাটি হতো, একদনি দাদাকে বাসা থকেে বদিায় দনে বউদ।ি

হয়তাে এখানে বউদরি নাম-পরচিয় জানা থাকলে পাঠকদরে বষিয়টি বুঝতে আরো সহজ হব!ে এতক্ষণ যাকে বউদি বলে সম্বােধন করছে,ি তনিি আর কউে নন, গৗেরীপুররে এই সইে ময়ে,ে কাগজকলমে নাম তার জ্যোতকিা রাণী পাল, শোবজি জগতে জ্যোতকিা জ্যোতি নামে ব্যাপক পরচিতি,ি আজকরে জনপ্রয়ি অভনিয়শল্পিী ছোটর্পদা ও রুপালি জগতে প্রতষ্ঠিতি মুখ, সইে হারানো দনিরে শ্যামল দার প্রয়িতমা স্ত্রী ও আমার বউদি জ্যোতকিা জ্যোত।ি

১৯৯৯ কংিবা ২০০০ সালরে লাক্স-আনন্দধারা ফটোজনেকি কন্টস্টে থকেে তার এই জগতে পর্দাপণ। এখন শোবজি জগতে জনপ্রয়ি মডলে এবং অভনিত্রেী হসিবেে পরচিতি । সমান্তরালভাবে নাটক এবং সনিমোয় সরব। উপস্থাপনা-নাটকরে পাশাপাশি ২০০৫ সালে সারাহ্ বগেম কবরীর আয়না চলচ্চত্রিরে মাধ্যমে অভনিয়রে জগতে পা রাখনে তনি।ি এরপর বলোল আহমদেরে নন্দতি নরকে এবং তানভীর মোকাম্মলেরে রাবয়ো, তানভীর মোকাম্মলেরে জীবনঢুলি আজাদ আবুল কালামরে বদেনেী এবং অনলি বাগচীর মতো চলচ্চত্রিে অভনিয় করে র্দশক হৃদয়ে জায়গা করে ননে আমার সইে পুরানাে দনিরে বউদি ও আজকরে এ জ্যোত।ি এ ছাড়া নূরুল আলম আতকি, আবুল হায়াত, মােশারফ, অনমিষে আইচ, সালাউদ্দনি লাভলুর মতো নর্মিাতাদরে সঙ্গে ছোট র্পদায় অসংখ্য কাজ করছেনে এ অভনিত্রেী।
প্রশংসা কুড়য়িছেনে ‘স্বপ্নরে পাঠশালা’তওে অভনিয় কর।ে সবমলিইে এ সময়রে সম্ভাবনাময় এক অভনিত্রেী। ইতোমধ্যে বাহ্যকি সৗের্ন্দযরে সাথে সাবলীল অভনিয় দয়িে র্দশকদরে মন জয় করে চলছেনে তনি।িটভিি নাটকরে পাশাপাশি সনিমোয় বচৈত্র্যিময় চরত্রিে অভনিয় করে নজিরে জায়গা শক্ত রখেছেনে।তার এই ধারাবাহকি সাফল্যে আমরাও খুশ।ি ময়মনসংিহরে ময়েে এবং আমার সইে পুরানাে দনিরে বউদি বলে কথা।

প্রসঙ্গত, আবার ফরিে আসি একটু পছেন।ে উত্তরার বাসা থকেে দাদাকে বরে করে দনে বউদ.ি..)এর প্রায় পৌনে দুই বছর পর তাদরে মাঝে ডভর্িোস হয়। ২০১১ সালরে ১১ জানুয়ারতিে শ্যামল দা ময়মনসংিহ জজর্কোটরে আইনজীবীর মাধ্যমে জলো নোটারী পাবলকিে এফডিভেটিে তাঁর দয়ো ডভর্িোস লটোরে যা লখেনে তাত-ে ‘আমি র্ধমত প্রতজ্ঞিা করতিছেি য,ে জ্যোতকিা রানী পাল, পতিা- শ্রী নতিাই চন্দ্র পাল, হতয়ির গৌরীপুর, ময়মনসংিহকে বগিত ১৯৯৮ সালরে ১৪ সপ্টেম্বের ববিাহ কর,ি ববিাহরে পর আমার স্ত্রীকে সন্তান নতিে বললে সে লখোপড়া শষে করে সন্তান নবোর কথা বল।ে কন্তিু লখোপড়া শষে করার পর সন্তান না নয়িে এবং চাকুরতিে যোগ না দয়িে বাবা-মার নষিধোজ্ঞা সত্ত্বওে আমাকে রখেে একাকী ঢাকা গয়িে কৌশলে টভিি নাটকে যোগ দয়িে তা নয়িইে মাসরে পর মাস ব্যস্ত থাক।ে’

‘এহনে অবস্থায় আমি ময়মনসংিহরে চাকুরি ছাড়য়িা ঢাকায় অন্য চাকুরি নয়িা একই বাসায় বসবাস করতে থাক।ি দাম্পত্যজীবনরে সুর্দীঘ ৯ বছর পর পুনরায় তাকে সন্তান নতিে বললে সে কখনো সন্তান নবিে না বলে আমাকে ও বাবা-মা চরমভাবে অপমান কর।েএরপরও আমি অনকে ধর্য্যৈধারণ কর,ি কন্তিু এক র্পযায়ে আমার স্ত্রী ও শ্বশুর মলিে আমাকে অপমান-অপদস্ত করে বাসা থকেে বরে করে দনে। এরপরও আমি তাকে সবকছিু ভুলে গয়িে সন্তানগ্রহণ র্পূবক ঘরসংসার করার জন্য বহুবার অনুরোধ কর।ি কন্তিু এতে কোনো লাভ হয় নাই। প্রায় এক বছর ৭ মাস অপক্ষো করতে থাক,ি কন্তিু আমার ঠকিানা জানা সত্ত্বওে সে আমার সাথে কোনো ধরনরে যোগাযোগ করে নাই। বরং আমি কখনো বাসায় গলেে সে অনকে রাগারাগি ও ঝগড়াঝাটি করে বাসা থকেে বরে হয়ে যতে। ফলে সখোনে যাওয়ার পরবিশেও নষ্ট যায়।’

‘ফলে ববিাহতি জীবনরে ১২টি বছর টালবাহানা করে সন্তান না নয়িা রাত দনি নাটক নয়িে ব্যস্ত থকেে পরর্বতীতে সন্তান নবিে না বলে জানাইয়া এবং আমাকে দূরে সরাইয়া দয়িা আমার জীবনরে চরম ক্ষতি সাধন করছেে বধিায় আমার ভবষ্যিৎ বংশ রর্ক্ষাথে আমার স্ত্রী জ্যোতকিা রানী পাল এর সহতি ববিাহ বন্ধন ছন্নি করলিাম। অদ্য হইতে সে আমার স্ত্রী নহে ও আমি তার স্বামী নহ।ি যদি ভবষ্যিতে কহে কাহাকে স্বামী-স্ত্রী হসিবেে দাবি করি তবে তাহা র্সবক্ষত্রেে র্সব আদালতে আইনত: অগ্রাহ্য হব।ে ইহাই আমার এফডিভেটি।’

প্রমে, বয়িে অত:পর ববিাহ বচ্ছিদে এগুলো সমাজে সবই স্বাভাবকি ঘটনা। তা নয়িে আমার কোনো কথা নইে। কন্তিু পত্রকিার পাতায় কংিবা টভিরি র্পদায় যখন দখেি এই অভনিত্রেী এখনো কুমারী নায়কিা, সাক্ষাৎকারে বলনে’‘ আপাতত বয়িে নয়িে ভাবছি না’। এছাড়া যখন বলনে- ‘নজিরে আগ্রহইে এতদূর এসছে’ি। তখনই নজিরে প্রতক্রিয়িা হয়। আর সটো থকেে আজকরে এই খােলামলো লখো।

কনেনা আমি দখেছিি এই সইে জ্যোতরি লখোপড়া আর অভনিয় করতে ঢাকায় থাকার জন্য খরচ জোগাড় করতে গয়িে আমার মাসকিে খয়েে না খয়েে থাকতে হয়ছে,ে দখেছিি পুত্রবধূর সুখরে জন্য নজিরে বতেনরে বশেীরভাগ টাকা দয়িে নজিে কত কষ্ট করছেনে। এই সইে জ্যোতি যার জন্য একটি পরবিার প্রায় ন:িস্ব হয়ে গলে, যাকে অকৃত্রমি ভালবাসতে গয়িে একটি জীবন ছন্নছাড়া হলো। আর এসব কছিু অন্ধকারে রখেে সইে বউদি জ্যোতকিা জ্যোতি আজ শোবজি জগতরে বড় নায়কিা-অভনিত্রেী, সমাজরে সুশীলদরে একজন। সাক্ষাৎকারে বড় বড় কথা বলনে। বলনে, উঠে আসার গল্প, কন্তিু কোনদনি তো শুননেি মাসি কংিবা শ্যামলরে নাম নতি,ে বরং বউদি জ্যোতকিা জ্যোতরি ভাবখানা এমন যে তনিি যনে কোনোদনি বয়িইে করনেন।ি শ্যামল নামে কাউকে চনিনেও না, তার এগয়িে যাওয়ার শ্যাফালী মাসরি প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ তো দূররে কথা এই নামে শ্বাশুরী ছলি বলে এমনটি স্বীকারও করনে না।

আমরা জান,ি শল্পিকলা-সাহত্যি, চলচ্চত্রি-নাটক, সঙ্গীত-নৃত্য এসব যে কোনো জাতরি সভ্যতা-সংস্কতরি পরচিয় বহন কর।ে একবংিশ শতাব্দীর এই যুগে এসব ক্ষত্রেে যে জাতি যতবশেী উন্নত তারা ততবশেী সভ্য জাতি হসিবেে পৃথবিীর বুকে পরচিতি। এদকি থকেে হাজার বছররে সাংস্কৃতকি ঐতহ্যিে বাঙালী জাতরি অন্যরকম সুনাম-সুখ্যাতি রয়ছেে বশ্বিব্যাপী।এক্ষত্রেে যাদরে সবচয়েে বড় অবদান তারা হলনে চলচ্চত্রি ও সাংস্কৃতকি ব্যক্তত্বি । কনেনা, এসব অঙ্গনে যারা কাজ করনে তারা সমাজরে মডলে। তারা প্রতনিয়িত তাদরে র্কম ও ব্যক্তত্বিরে মাধ্যমে সমাজকে বহুলাংশে প্রভাবতি করনে । কোনো কারণে এরা কখনো ববিকেহীন আচরণ করলে গোটা জাতি বপিদগামী হয়। কনেনা, এরা সমাজরে পুরাতন কুসংস্কারকে ভঙেে নতুন সভ্যতার বনির্মিাণ করনে।এরাই সমাজরে সুশীল ও বুদ্ধজিীবীও বট।ে

আমাদরে চলচ্চত্রি ও সাংস্কৃতকি অঙ্গনরে এমনই সম্ভাবনাময় প্রতভিাবান জ্যোতকিা জ্যোত।ি যাকে নয়িে আমরা সবাই র্গব কর।ি আমাদরে চলচ্চত্রি অঙ্গনে তনিি খুবই সম্ভাবনাময়। চলচ্চত্রিরে অভনিত্রেীদরে মধ্যে সববয়সী র্দশকরে কাছে যনিি ব্যাপক জনপ্রয়ি । যার অভনিয় দখেে তরুণ সমাজ অনুপ্রাণতি হয়ে থাকে ।তনিি শুধু একজন অভনিত্রেীই নন একজন শক্ষিতি, সুন্দরী ও মষ্টিভাষী শাবলীল ময়ে।ে

অনকেইে তাকে চলচ্চত্রি অঙ্গনরে সম্ভাবনাময় উদীয়মান উজ্জ্বল নক্ষত্র বলওে উল্লখে করনে। কন্তিু যা জনেছেি তাত-ে তাঁর ভতেরকারটা এতটা…! এটা কারো কাম্য নয়। ফলে তার কাছ থকেে সবাই আরো দায়ত্বিশীল আচরণ প্রত্যাশা কর।ে যারা তাকে এই শোবজি জগতে এগয়িে দয়িছেনে, র্সাবকি সহযোগতিা করছেনে, তাদরেকে ন:িস্ব করে দয়িে সব কছিু অস্বীকার করে নজিে শানসওকত।ে এটা আবার কমেন!

প্রসঙ্গত, কছিুদনি আগে ফোনে কথা হয় আমার সইে বউদি জ্যোতকিা জ্যোতরি সাথ,ে কুশলবনিমিয়রে পাশাপাশি তনিি জানালনে ‘আশীষরে সাথে তো আমার ডভর্িোস হয়ে গছে।ে সে তো পুনরায় বয়িে করে ফলেছে।ে কনে এমনটি হলো এর জবাবে বললনে, বভিন্নি কারণইে আমরা একসাথে থাকতে পারনি।ি এখনতো আমি একা তাই বলি আপতত বয়িরে কথা চন্তিা করছি না।

সবশষেে বলতে ইচ্ছে হয়, হায়রে সনিমো, হায়রে নাটক, হায়রে শোবজি জগত তুমি এতোই নর্মিম-নষ্ঠিুর জগত! তুমি মানুষকে সব প্রমে, ভালবাসা, ববিাহ, পারবিারকি বন্ধন সবকছিুই ভুলয়িে দতিে সক্ষম! তাহলে তুমইি আবার কীভাবে মানুষকে কছিু দবি!ে এরপরও পৃথবিীর এটাই বাস্তবতা। এরপরও প্রমে মানুষরে জীবনরে এক অনবদ্য অধ্যায়। কারো জীবন কটেে যায় এক প্রমে,ে কারো জীবনে আসে একাধকি। তবে পরস্থিতিি যাই হোক না কনে, প্রমেরে আগমন শত চাইলওে বুঝি ঠকোনো যায় না। অনকেইে প্রমেরে শুরুতে এমন কছিু করে বসনে য,ে পরর্বতীতে সর্ম্পক চালয়িে নয়োটা মুশকলি হয়ে যায়। আবগেরে বসে অনকে ভুল সদ্ধিান্ত নয়ো হয়ে যায়, যে ভুল আরও অনকেরে জীবনকে ছন্নছাড়া করে ফলে।ে
লখেক: গবষেক ও কলামলখেক ।

লেখক: গবেষক ও কলামলেখক । ই-মেইল:sarderanis@gmail.com

আপনার মতামত



close