চিংড়ি শিল্পের অগ্রগতির জন্য একসাথে কাজ করতে হবে

টাইগার নিউজ

News Photo from Rupantar-09-08-15নিজস্ব প্রতিবেদক :: বাংলাদেশের চিংড়ি শিল্পে শিক্ষা ও তথ্যভিত্তিক প্রচারাভিযানের বার্তা নির্ধারণে পরামর্শ কর্মশালায় বক্তারা বলেছেন, চিংড়ি শিল্প এখন এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এ পরিস্থিতি মোকাবেলায় সংশ্লিষ্ট সকলকে এক সাথে কাজ করতে হবে। এ শিল্পকে টিকে থাকতে হলে মালিক-শ্রমিকের সম্পর্ক উন্নয়ন, কাঁচামালের সরবরাহ বৃদ্ধি, শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিতকরণ, বাজার সম্প্রসারণ, শ্রমিকদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে উৎপাদনব্যয় হ্রাসসহ আরও কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করার বিকল্প নেই।
আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংস্থা-আইএলও’র সহযোগিতায় উন্নয়ন সংস্থা রূপান্তর, সুশীলন এবং বাংলাদেশ হিমায়িত খাদ্য রপ্তানীকারক সমিতির যৌথ আয়োজনে আজ রবিবার অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন রূপান্তর-এর নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার গুহ। এতে শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন আইএলও’র সিনিয়র কমিউনিকেশন অফিসার স্টিভ নিধাম। বাংলাদেশের চিংড়ি শিল্পে শিক্ষা ও তথ্যভিত্তিক প্রচারাভিযানের বার্তা নির্ধারণে অনুষ্ঠিত এফজিডি’র উপস্থাপন করেন রূপান্তর-এর আরবান গভর্নেন্স প্রকল্প সমন্বয়কারী শাহাদত হোসেন বাচ্চু। মুক্ত আলোচনা পর্ব পরিচালনা করেন সুন্দরবন একাডেমীর নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক আনোয়ারুল কাদির এবং বাংলাদেশ হিমায়িত খাদ্য রপ্তানীকারক সমিতির পরিচালক এস. হুমায়ুন কবীর।
সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের এফএমআরটি ডিসিপ্লিনের প্রধান প্রফেসর ড. আইয়াজ হাসান চিশতি, কল-কারখানা পরিদর্শন অধিদপ্তরের উপ-মহাপরিদর্শক মহর আলী মোল্লা, মৎস্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ মনিরুল মামুন, বাংলাদেশ হিমায়িত খাদ্য রপ্তানীকারক সমিতির সহ-সভাপতি শেখ মোঃ আব্দুল বাকী, আইএলও’র সিনিয়র কমিউনিকেশন অফিসার স্টিভ নিধাম, চিংড়ি শিল্প স্বার্থ সংরক্ষণ কমিটির মহাসচিব এইচ এম শাহাদৎ এবং সুশীলনের নির্বাহী পরিচালক মোস্তফা নূরুজ্জামান। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন রূপান্তর-এর কর্মসূচী সমন্বয়কারী অসীম আনন্দ দাস।
অনুষ্ঠানে বক্তারা অভিমত ব্যক্ত করেন চিংড়ি শিল্পের সার্বিক উন্নয়নে যে পটগান রচিত হবে তাতে চিংড়ি শিল্পের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি এ শিল্পের অগ্রগতির জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য থাকতে হবে।

আপনার মতামত



close